২০৭০ সালের মধ্যে বিলুপ্ত হবে সুন্দরবনের বাঘ

জীব ও বৈচিত্র্য ডেস্ক :

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে আগামী ৫০ বছরের মধ্যে হারিয়ে যাবে সুন্দরবনের বিশ্বখ্যাত রয়েল বেঙ্গল টাইগার।সম্প্রিত বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার বিজ্ঞানীদের যৌথ এক গবেষণায় উঠে এসেছে ভয়াণক এই তথ্যটি।

বিজ্ঞানীদের দেওয়া তথ্য মতে, সমুদ্রের পানি পরিমাণ ক্রমাগত বাড়ার কারণে বাংলাদেশে উপকূলীয় অঞ্চলে অবস্থিত সুন্দরবনের রয়েল বেঙ্গল টাইগারের অস্তিত্ব রয়েছে হুমকির মুখে। এ বিষয়টি প্রকাশ করেছে সায়েন্স অব দ্যা টোটাল এনভায়রনমেন্ট।

গবেষণায় আরো বলা হয়, ক্রমাগত সাগরের পানি বাড়ার কারণে বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে অবস্থিত সুন্দরবনের বাসিন্দা রয়েল বেঙ্গল টাইগার চিরতরে হারিয়ে যেতে বসেছে।

সুন্দরবন বাংলাদেশ ও ভারতের প্রায় ১০ হাজার কিলোমিটার এলাকা নিয়ে গঠিত। এইট পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রভ বন। বিজ্ঞানীর তথ্যমতে আগামী ২০৭০ সালের মধ্যে সুন্দর বনের বাঘের সংখ্যা শুণ্যের কোঠায় নেমে আসবে।

এদিকে বাঘ বিলুপ্ত হওয়ার পেছনে জলবায়ু ছাড়াও রয়েছে কলকারখানা স্থাপন, নতুন রাস্তা তৈরি এবং নির্বিচার শিকার। একদিকে, মানুষের আগ্রাসন এবং অন্যদিকে, জলবায়ু পরিবর্তন বাঘের আবাসস্থলকে সঙ্কটাপন্ন করে ফেলেছে।”

প্রসঙ্গত,২০০১ সালে সুন্দরবনে বাঘের অস্তিত্ব ছিল ৪৪০টি, ২০১৬ সালে সে সংখ্যা নেমে দাঁড়ায় ১০৬। এই সংখ্যা বর্তমানে ‘ডাবল ডিজিটে’ রূপ নিয়েছে। অর্থ্যাৎ ১০০-এর নীচে নেমে গেছে। যদিও সর্বশেষ জরিপের ফলাফল প্রকাশ করে ২০১৫ সালে বনবিভাগ থেকে জানানো হয়, সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা মাত্র ১০৬।