শাড়ির জন্য ঢাকার যেসব মার্কেট বিখ্যাত

রায়হান রহমান

শাড়ি ও বাঙালি নারী দুটোই এক সুতোয় গাথা। ফ্যাশনে আমূল পরিবর্তন এলেও বাঙ্গালি নারীদের কাছে শাড়ির আবেদন একটুও ফুরোয় নি। ফলে চাহিদার বিচারে বাজারে হাজার রকমের শাড়ির খোঁজ মিলে। বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে জানা গেছে, বর্তমানে চাহিদার শীর্ষে রয়েছে হাফ সিল্ক, কটন, জামদানি, বেনারসি ও মসলিনের মত পাতলা শাড়িগুলো। এসব শাড়ি কেনার জন্য রাজধানী ঢাকায় রয়েছে বেশ কয়েকটি বিখ্যাত মার্কেট। সেসব নিয়েই আজকের আয়োজন।

মিরপুরের বেনারসি পল্লী
এখানকার কাতান, বেনারসি ও সিল্ক শাড়ি বেশ আকর্ষণীয়। কারুকাজ, রঙের ব্যবহার ও ডিজাইন মিলিয়ে কাতান বেনারসি এবং সিল্ক শাড়ির চাহিদা অনেক। আর এ ধরনের আকর্ষণীয় শাড়ির মেলা মিরপুরের বেনারসি পল্লী। এখানে প্রায় ২০০ টি শাড়ির দোকান রয়েছে। এসব শাড়ির দোকানে মিলছে বেনারসিসহ প্রায় সব ধরনের শাড়ি। তার মধ্যে টাঙ্গাইল তাঁত, টাঙ্গাইল হাফ সিল্ক, রাজশাহী সিল্ক, ঢাকাই মসলিন, কাতান, কাটা শাড়ি, জামদানি, বেনারসি ও জর্জেট অন্যতম। এসব শাড়িতে রয়েছে আভিজাত্যের ছাপ। পাকা রং আর ওজনে হালকা, সঙ্গে জুতসই দাম হওয়ায় উচ্চবিত্ত থেকে নিম্নমধ্যবিত্ত- সবাই আসে এখানে। বিশেষ করে বিয়ের শাড়ি বা কোনো উৎসব আয়োজনের শাড়ির জন্য জনপ্রিয় মিরপুর বেনারসি পল্লী।

ধানমণ্ডি হকার্স মার্কেট
গাউছিয়া মার্কেটের উল্টো পাশেই ধানমণ্ডি হকার্স মার্কেট। ঢাকায় যারা বসবাস করেন, শাড়ি কেনাকাটার জন্য তাদের প্রথম পছন্দ ধানমণ্ডি হকার্স মার্কেট। এখানে মসলিন, নেটশাড়ি, মন্থানের কাতান, অলগেঞ্জ, টিসু, পার্টি শাড়ি, পার্টি লেহেঙ্গা, ভেলোর কাতান, বেনারসি কাতান, বেলগা কাতান, ফ্লোরাল প্রিন্টসহ বিভিন্ন ধরনের শাড়ি পাওয়া যায়। রয়েছে ঐতিহ্যবাহী জামদানি ও টাঙ্গাইল শাড়ির বেশ কিছু প্রসিদ্ধ দোকান। দামটাও মধ্যবিত্তের নাগালের মধ্যে। মালিবাগ থেকে তানজিয়া আফরিন এসেছেন ধানমণ্ডি হকার্সে শাড়ি কিনতে। তার মতে, দেশের নামি ব্র্যান্ডগুলোর মূল্য এত বেশি যে, কেনার সুযোগই থাকে না। অথচ একই ডিজাইনের শাড়ি এখানে পাওয়া যায় অনেক কমমূল্যে। আর একসঙ্গে অনেক দোকান থাকায় শাড়ির মধ্যে বৈচিত্র্য খুঁজে পাওয়া যায়।

বেইলি রোড
বেইলি রোড মানেই শাড়ির বৃহৎ বাজার। ২৮ বছর ধরে বেইলি রোডে গড়ে উঠেছে শতাধিক শাড়ির দোকান। এখানকার প্রধান আকর্ষণ টাঙ্গাইলের তাঁত ও ঢাকাই জামদানি। এ ছাড়া পাওয়া যাবে মিরপুর, ডেমরা, কুমিল্লা, পাবনা, সিরাজগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের তৈরি তাঁতের শাড়ি। সঙ্গে বিদেশি শাড়ি তো আছেই। এর মধ্যে কাঞ্জিভরম, পঞ্চমকলি, অপেরা কাতান, কাঁঠাল কাতান, আলাপ কাতান, ভোমকা কাতান, খাদি কাতান, শিফন, ক্র্যাফট, জর্জেট শাড়িগুলোই বেশি পাওয়া যায়। বেইলি রোডের বিভিন্ন দোকান ঘুরে দেখা গেছে, ঐতিহ্যবাহী মসলিন, রাজশাহী সিল্ক, জামদানি, মিরপুরের কাতান, বালুচুরি, টাঙ্গাইলের সিল্ক, কাতান, সুতি, পাবনার তাঁত ও কাতান, জুট কটন, জুট কাতান এবং হাফ সিল্ক শাড়ির চাহিদা বেশি। ভেজিটেবল ডাই এবং হাতের কাজের শাড়িও পাওয়া যায় এখানে।