কয়েকটি প্রয়োজনীয় স্মার্ট পণ্য

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে মানুষ হয়ে পড়ছে প্রযুক্তিনির্ভর। যাপিত জীবনের ব্যবহার্য নানা বিষয়ে এসেছে পরিবর্তন। মানুষ ঝুঁকছে স্মার্ট পণ্য কেনাকাটায়। এরকম তিন পণ্য নিয়ে লিখেছেন

স্মার্টওয়াচ

প্রযুক্তির সেরা সংযোজনের মধ্যে স্মার্টওয়াচ একটি। মূলত প্রযুক্তিনির্ভর হাতঘড়িকে স্মার্টওয়াচ বলে। প্রযুক্তিনির্ভর এই হাতঘড়িটির ব্যবহার শুধু সময় দেখার মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই বরং এতে যুক্ত হয়েছে ডিজিটাল সব ফিচার। ফলে ফ্যাশনেবল গেজেট হিসেবে ইতিমধ্যেই সুনাম কুড়িয়েছে স্মার্টওয়াচ। এখন হাতের স্মার্টওয়াচটিই ফোনের সব কাজ করে দিতে পটু। কিছু কিছু স্মার্টওয়াচের মধ্যে পুরো অপারেটিং সিস্টেম লোড করা থাকে। ফলে এটিকে স্মার্ট মোবাইলের এক্সট্রা গিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা যায়। এমনকি নির্দিষ্ট স্থানে সিম সংযুক্ত করে মোবাইল হিসেবেও ব্যবহার করা যায়। শুধু তাই নয়, মোবাইলের খুঁটিনাটি সব বিষয়াদিই এর মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। বাজারে অ্যাপেল স্মার্টওয়াচ, এম আই থ্রি স্মার্টওয়াচ, কাভার্ড ডিসপ্লে স্মার্টওয়াচ উইথ ব্লু টুথ, স্মার্ট মোবাইল ওয়াচ, কিউ আঠারো স্মার্টওয়াচ ও জেট জি নাইন স্মার্টওয়াচগুলো বেশ জনপ্রিয়। বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স এক্সেসরিজ ও কম্পিউটার এবং অনলাইন শপে পাওয়া যাবে।

দরদাম : মডেল ভেদে স্মার্টওয়াচের পার্থক্য আছে। সর্বনিম্ন ৭০০ টাকা থেকে ৮ হাজার টাকার মধ্যে পছন্দসই স্মার্টওয়াচ কেনা যাবে।

বডি অ্যানালাইজার

দেখে ওজন মাপার যন্ত্র ভাবলে একটুও ভুল হবে না। তবে এর মাধ্যমে কেবল ওজনই মাপা হয় না সঙ্গে পুরোপুরি হেলথ ট্র্যাকিং স্কেল রয়েছে এই যন্ত্রে। এর মাধ্যমে জানা যাবে শরীরের সব কিছুর খোঁজখবর। ফ্যাট পার্সেন্টেজ থেকে শুরু করে হার্ট বিটের হিসাব, সবই বলে দেয় এ যন্ত্র। এমনকি অ্যাপ লাগিয়ে টার্গেট নির্ধারণ করে দিলে জানিয়ে দেবে ওজন নিয়ন্ত্রণের অগ্রগতি। গুলিস্তান স্টেডিয়াম মার্কেটসহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্সের দোকানে পাওয়া যাবে স্মার্ট বডি অ্যানালাইজার।

দরদাম : স্মার্ট বডি অ্যানালাইজার ১০০০ টাকা থেকে শুরু করে বিভিন্ন দামে রয়েছে।

ওয়েটিং মেশিন

প্রযুক্তির হাওয়া লেগেছে ওজন মাপার যন্ত্রেও। ছোট-বড় সব ধরনের মাপামাপির কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে স্মার্ট ওয়েটিং মেশিন। মুদি থেকে মনিহারি সব দোকানেই ব্যবহার হয় এ যন্ত্রের। স্মার্ট ওয়েটিং মেশিনের সুবিধা হলো, পণ্যের ওজন ও দাম নিয়ে ঝামেলায় পড়তে হয়না। পণ্যটি মেশিনে ওপরে রাখলেই ওজন ও দাম চলে আসে।

স্মার্ট ওয়েটিং মেশিনের মধ্যে ওয়েট স্কেলে রয়েছে এলসিডি ব্যাকলাইট ডিসপ্লে। এছাড়াও হ্যাঙ্গার স্কেল ওয়েটিং মেশিন দিয়ে যেকোনো পণ্যকে ঝুলিয়ে মাপা যায়। এটি চলে পেন্সিল ব্যাটারি দিয়ে। অতিরিক্ত ঝামেলাও পোহাতে হয় না।

দরদাম : বেশি ক্যাপাসিটির ওজন মাপতে হলে একটু বেশি দাম দিয়েই কিনতে হবে। বাজারে ৪০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা মূল্যের ওয়েট মেশিন কেনা যাবে।