কমে যাচ্ছে ছবির প্রচারণা

‘প্রচারেই প্রসার’। কিছুদিন আগে বিষয়টিকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হতো চলচ্চিত্র পরিবারে। ছবি মুক্তির আগে পোস্টার, মাইকিং, ফেসবুকসহ ছবির অভিনয়শিল্পীরা বিভিন্নভাবে প্রচারণার মাধ্যমে দর্শককে আকৃষ্ট করতেন। কিন্তু হঠাৎ করেই যেন বদলে গেছে পরিবেশ। কোনোরকম প্রচারণা ছাড়াই অনেকটা নীরবেই মুক্তি পাচ্ছে সিনেমা। এমনকি গোপনে একটি কিংবা দুটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাওয়ার ঘটনা ঘটছে। আর এতে লগ্নিকারকদের পাশাপাশি দিশেহরা হয়ে পড়ছেন মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমার পাত্র-পাত্রীরা। এমনিতেই চলচ্চিত্রের ব্যবসার অবস্থা মন্দা, তারমধ্যে প্রচারণা না থাকায় চলচ্চিত্র শিল্প আরও স্থবির হয়ে হয়ে পড়ছে।

বর্তমানে প্রচারণার জোরেই ধুন্ধমার ব্যবসা করছেন হলিউড-বলিউডের বেশিরভাগ ছবি। ছবির মহরত থেকে শুরু করে মুক্তির আগ পর্যন্ত প্রযোজক, পরিচালক ও ছবির অভিনেতা-অভিনেত্রীরা প্রচারণায় প্রচন্ড ব্যস্ত থাকেন। নানাভাবে ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ছবিটির প্রতি দর্শকদের আগ্রহ তৈরি করেন। যদিও আমাদের দেশে ছবি মুক্তির আগে টেলিভিশন ও রেডিওতে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হতো। ছবিটির বিষয়ে এমন ধারণা দেয়া হতো তাতে করে দর্শক ওই ছবিটি দেখতে আগ্রহ প্রকাশ করতেন। কাকরাইল পাড়াসহ দেশের চলচ্চিত্রাঙিনায় শোলগোল পড়ে যেত ছবিটি নিয়ে। রাস্তার মোড়ে মোড়ে শোভা পেত ছবির পোস্টার। খবরের কাগজে দেয়া হতো বিজ্ঞাপন। মাইকিংয়ে জানানো হতো নতুন ছবির মুক্তির দিন-তারিখ। কিন্তু এখন প্রচারণা নেই। মুক্তির দুই-একদিন আগে কিছু পোস্টার সাঁটা হয় রাজধানীতে। তাও আবার সব এলাকায় দেখা যায় না। এমনকি অভিনয়শিল্পীদের না জানিয়েও ছবি মুক্তি পাওয়ার অভিযোগও শোনা যায় কখনো কখনো। ‘অন্ধকার জগত’, ভালোবাসার রাজকন্যা, আলফা, মেঘকন্যা, বয়ফেন্ড, বেপরোয়া, ভালোবাসা ডট কম’সহ চলতি বছরে যতগুলো ছবি মুক্তি পেয়েছে তার বেশিরভাগ ছবিই প্রচারণা ছাড়া মুক্তি পেয়েছে। ফলে মুক্তির প্রথম দিনেই দর্শকশূন্যতার কবলে পড়ে ছবিগুলো।

অবশ্য কিছু ছবি প্রচারণায় বেশ জোড়ালো ভূমিকা রেখেছে। জয়া আহসানের ‘দেবী’ ছবির প্রচারণায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছিলেন সংশ্লিষ্টরা। মুক্তির আগ পর্যন্ত ব্যাপক প্রচারণায় এগিয়ে ছিলেন ‘দেবী’ টিম। এ ছবির প্রচারণার জন্য অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী ও জয়া আহসান অভিনয় থেকে কিছু দিন বিরতিতে ছিলেন। খেলার মাঠে দর্শক গ্যালারিতে ছবির চরিত্র বেশে হাজির হয়েছিলেন চঞ্চল। টিভি চ্যানেলে সংবাদ পাঠের মাধ্যমে ‘দেবী’ সম্পর্কে জানান দিয়েছিলেন চঞ্চল চৌধুরী ও জয়া আহসান। এছাড়া সংবাদ সম্মেলন, পত্রিকায় কাভারেজ, ‘দেবী’ পোশাকেও চমক দেখিয়েছিলেন ছবিটি।

‘দেবী’ ছাড়াও মোস্তফা সরওয়ার ফারুকীর ‘পিঁপড়াবিদ্যা’, মৌসুমী-ফেরদৌসের ‘এক কাপ চা’, ‘আয়নাবাজি’ ছবিগুলো এগিয়ে ছিল প্রচারণায়। হাতে গোনা কয়েকটি ছবি ছাড়া প্রতি বছরে মুক্তিপ্রাপ্ত সব ছবিই প্রচারণায় পিছিয়ে থাকে। নিজের ছবি প্রচারণাতে অনীহা থাকে নায়ক-নায়িকাদের। গত রোজার ঈদে ‘পাসওয়ার্ড’ নিয়ে ব্যস্ত থাকলেও আরেক ছবি ‘নোলক’ এর বেলায় প্রচারণায় শাকিব খান কোনো গুরুত্ব দেননি বলে অভিযোগ রয়েছে। চলতি মাসে মুক্তির তালিকায় রয়েছে ছয়টি ছবি। এ ছবিগুলো নিয়েও প্রচারণা প্রকাশ পাচ্ছে না।

এ বিষয়ে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার বলেন, ‘বিষয়টি সত্যিই দুঃখজনক। ছবি মুক্তির আগে প্রচারণায় গুরুত্ব দেয়া হয় না। এটা ওই ছবি সংশ্লিষ্টদের পরিকল্পনার অভাব। প্রচারণার ক্ষেত্রে ছবির শিল্পীদের সহযোগিতা পাওয়া যায় না। অভিযোগ আছে শিল্পীরা প্রচারণার জন্য সময় দিতে চান না। তারা মনে করেন ছবির শুটিং-ডাবিং শেষ তো সব শেষ। এতে করে চলচ্চিত্র ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। দর্শক আগ্রহী হচ্ছে না সিনেমা দেখতে। ফলে সিনেমা হলে দর্শক সংকট দেখা দেয়। প্রচারণার জন্য প্রযোজক-পরিচালক ও অভিনয়শিল্পীরা ছবির প্রচারণায় গুরুত্ব দিলে সেই ছবি সাধারণত ব্যবসা ভালো করে। এতে করে শিল্পীদেরও মূল্যায়ন হয়, চলচ্চিত্রের পরিবেশও উন্নতি হয়। আমার মনে হয় প্রতিটি ছবির মুক্তির আগে প্রচারণায় গুরুত্ব দেয়া উচিত।’