X (এক্স) যেভাবে অজানা রাশি হলো

রিজাফুল ইসলাম

দুইটি সংখ্যার  যোগফল ২০। একটি সংখ্যা  ১৫ হলে অপর সংখ্যাটি কত ? গণিতের পরিচিত একটি প্রশ্নের উদাহরণ। এ ধরণের প্রশ্ন সমাধান করতে ছাত্র-শিক্ষক সবাই আমরা শুরু করি ” মনে  করি অজানা সংখ্যাটি X  লেখা দিয়ে। কিন্তু অজানা রাশি নির্ণয়ে এই  `X’ এর প্রচলন কিভাবে শুরু হলো।  শুধু রাশিই নয় কোনো কিছু অজানা বোঝাতে বহুদিন ধরেই ‘এক্স’ ব্যবহৃত হয়ে আসছে।  অজানা রাশি নির্ণয়ে `এক্স’  ধরে নেওয়ার পিছনে রয়েছে একটি ইতিহাস । Ted-Talks এ টেরি মুর জানিয়েছেন অজানা রাশি ‘এক্স’ এর নেপথ্য ইতিহাস।

দশম শতাব্দীর শুরু থেকেই আরবরা বিজ্ঞানের নানা ক্ষেত্রে পারদর্শিতা দেখাতে থাকেন। বিশেষ করে গনিতে তাদের অবদান অনস্বীকার্য। গণিতের বীজগণিত শাখায় তারা ব্যাপক উন্নয়ন করেন। আরবি আল-জাবর الجبر   শব্দটি   থেকে ইংরেজি আল-জেবরা “Algebra”  তথা বীজগণিত শব্দটি এসেছে। একাদশ এবং দ্বাদশ শতাব্দীতে ইউরোপে আরবীয় বিজ্ঞান বিষয়ক গ্রন্থগুলো অনুবাদ হতে শুরু করে। আরবীয় গণিতবিদদের বীজগণিত বিষয়ক লেখাগুলো স্প্যানিশ ভাষায় অনুবাদ শুরু করেন স্প্যানিশ অনুবাদকেরা।

 

আরও পড়তে পারেন – ‘প্যারাডক্স : বিজ্ঞানের জটিল ও রহস্যময় ধাঁধা’

 

কিন্তু এখানে একটি সমস্যা দেখা দিতে শুরু করে। আরবি ভাষার কিছু অক্ষরের উচ্চারণ স্প্যানিশ ভাষায় করা যেত না। মূলত আরবি অক্ষরগুলো উচ্চারণের জন্য সঠিক অক্ষর স্প্যানিশ ভাষায় ছিল না। এইরকম একটি অক্ষর হচ্ছে ش  শীন। ش  অক্ষরটি  বাংলায় উচ্চারণ করি আমরা তালব্য `শ’ দিয়ে শীন। ইংরেজিতে উচ্চারণ করা হয়  Sh  দিয়ে Sheen. অপর দিকে আরবি ভাষায়  شيء  (শাইউন) শব্দটির অর্থ হচ্ছে কিছু অথবা অজানা। شيء এর সাথে  ال (আল)  যুক্ত হয়ে তৈরি করে الشيء (আলশাইউ)। الشيء যার অর্থ হচ্ছে অজানা কিছু।

 

বর্গমূল করার নিয়ম

বর্গমূল নির্ণয়ের পদ্ধতি, ছবি : ইন্টারনেট

স্প্যানিশ অনুবাদকরা বর্গমূল বিষয়ক একটি অনুচ্ছেদ অনুবাদ করার সময় সমস্যায় পড়েন। কারণ বর্গমূল বিষয়ক লেখাটিতে الشيء  শব্দটি ছিল যা অনুবাদ করার জন্য স্প্যানিশে শীন অক্ষরের অনুরূপ অক্ষর বা الشيء  উচ্চারণের জন্য শ আওয়াজ করে এ জাতীয় কোন অক্ষর ছিল না। অনুবাদকেরা তখন নিয়ম চালু করে ش  বোঝাতে  ক্যাক  জাতীয় ধ্বনির প্রচলন করেন। তারা গ্রীক অক্ষর  χ  (কাই) দ্বারা ক্যাক লেখেন। পরবর্তীতে ইউরোপের ল্যাটিন ভাষায় অনুবাদের সময় গ্রীক  χ কাই এর পরিবর্তে ল্যাটিন অক্ষর  ?  (ল্যাটিন এক্স) ব্যবহার করেন। এরপর  গনিত বিষয়ক সকল বইয়ে অজানা রাশি বোঝাতে X এর ব্যবহার বাড়তে থাকে। বিজ্ঞানী উইলিয়াম রন্টজেন যখন X-Ray বা রঞ্জন রশ্মি আবিষ্কার করেন তখন তিনি রঞ্জন রশ্মির বৈশিষ্ট্য জানতেন না। তিনি অজানা রশ্মি বোঝাতে তিনি একে X-Ray নাম করেন।